তারেক শামসুর রেহমানের মৃত্যু নিয়ে এখনো রহস্য কাটেনি

তারেক শামসুর রেহমানের মৃত্যু নিয়ে এখনো রহস্য কাটেনি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ড. তারেক শামসুর রেহমান মারা গেছেন। শনিবার (১৭ এপ্রিল)  দুপুরে রাজধানীর উত্তরার ফ্ল্যাট থেকে তার মরাদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। 

পুলিশ প্রাথমিক ধারণা করেছে স্ট্রোক করে মারা গেছে। পুলিশ জানায়, ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসলে আসল ঘটনা জানা যাবে। 

Advertisements

উত্তরার রাজউক আবাসিক এলাকার দোলনচাঁপা ভবনে একা থাকতেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের এই শিক্ষক। 

প্রতিদিনের মতো সকালেও গৃহকর্মী এসে দরজায় ডাকাডাকি করে। অনেকক্ষন ডেকে সাড়া না পেলে গৃহকর্মী ঐ ভবনের নিরাপত্তা কর্মীদের জানায়। সিকিউরিটি ইনচার্জ জানায়, বুয়া এসে আমাদের জানালে আমরাও ডেকে সাড়া পায়নি।”

পুলিশ এসে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙ্গে অধ্যাপক তাদের শামসুরের মৃতদেহ বাথরুমের বাইরে পড়ে থাকতে দেখে।  এসময় তার পরনে ছিল প্যান্ট ও স্যান্ডোগেঞ্জি। পুলিশের ধারণা, স্ট্রোক করেছেন তিনি। মাথা ঘুরে পড়ে যাওয়ার কারণে বমি করেন ও মাথার পেছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

উত্তরা জোনের ডিসি মোঃ শহীদুল্লাহ বলেন, তার পা দুটো বাথরুমের ভেতরে ছিলো।  আর দেহ বাথরুমের বাইরে। রক্ত বমিও করেছেন। ধারণা করছে বমি করে মাথা ঘুরে পড়ে গেছে।

অধ্যাপক রেহমানের মৃত্যুর খবর তার যুক্তরাষ্ট্রে থাকা তার  স্ত্রী ও কন্যাকে জানানো হয়েছে। মৃত্যুর খবর পেয়ে তার স্বজনরা ঘটনা স্থলে এসেছে। তারা জানায়, পরিবারের মতামতেই দাফন ও অন্যান্য বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।  

একজন লেখক হিসেবে পরিচিতি ছিলো ব্যাপক। বাংলাদেশের রাজনীতি ও পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে নিয়মিত লেখালেখি করতেন। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জরি কমিশনের সদস্যের দায়িত্বও পালন করেন তিনি।  

আঁধার আলো/এএমডি